ওয়েবসাইটে ভিজিটর বাড়ানোর উপায় এবং কিভাবে ভিজিটর ধরে রাখবেন?

আসসালামুআলাইকুম বন্ধুরা আশা করি সকলে ভালো আছেন.
আমিও আল্লাহর রহমতে ভালো আছি অনেকদিন পর একটা আর্টিকেল আজকে পাবলিশ করতে বসলাম. সেটার ওয়েবসাইটের ভিজিটর (Visitor) নিয়ে অনেকে অনেক সময় ওয়েবসাইট খুলে থাকেন কিন্তু পর্যাপ্ত ভিজিটর (Visitor) না পাওয়ার কারণে সে গুগল এডসেন্স পায় না বা ভালো পরিমাণে ইনকাম হয় না.

 

আমাদের অ্যাপ ডাউনলোড করুন Flower2.6K Active Installations

কিভাবে দ্রুত গুগল এডসেন্স এপ্রুভাল পাবেন ? ( Fast adsense approval )(M)

 

সেইজন্য আমি আজকে Post পাবলিশ করব এতে সবার উপকার হবে

 

ওয়েবসাইট (website) তৈরির পর আমরা (We) প্রথমেই যে জিনিসটার উপর গুরুত্ব দেই তা হলো ভিজিটর (Visitor)। ভিজিটর (Visitor) ই মূলত একটি ওয়েবসাইটের (Website) প্রান। আজকে আমরা (We) ওয়েবসাইটে (website) ভিজিটর (Visitor) বাড়ানো এবং ভিজিটর (Visitor) ধরে রাখার কয়েকটি উপায় জানবো।

প্রথমে আসুন জানি , সাইটে ভিজিটর (Visitor) কিভাবে নিয়ে আসা যায়

 

সোশ্যাল (Socal) মিডিয়া (Media)

একটি ওয়েবসাইট (website) যখন নতুন তখন সে ওয়েবসাইট (website) সম্পর্কে কেউ জানে না। তাই আপনার ওয়েবসাইটের (Website) টার্গেট ভিজিটরদের কাছে পৌছানোর সব থেকে সহজ এবং কার্যকরী উপায় হতে পারে সোশ্যাল (Socal) মিডিয়া (Media)।

এক্ষেত্রে আপনি যদি ফেসবুক, ইউটিউব, ইন্সটাগ্রাম, টুইটার, /strong> সম্পর্কে ভালো ধারনা রাখেন তাহলে খুব সহজেই আপনি আপনার ওয়েবসাইটের (Website) জন্য এইসব সোশ্যাল (Socal) মিডিয়া (Media) সাইট (Site) থেকে ভিজিটর (Visitor) আপনার ওয়েবসাইটে (website) নিতে পারেন।

 

 

সার্চ (Secarce) ইন্জিন অপটিমাইজেশন

 

নতুন পুরনো যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইটেই ভিজিটর (Visitor) বাড়ানোর অন্যতম প্রধান একটি উপায় হতে পারে সার্চ (Secarce) ইন্জিন অপটিমাইজেশন (SEO)। সার্চইন্জিন গুলোতে আমরা (We) বিভিন্ন কী-ওয়ার্ড লিখে সার্চ (Secarce) করি, সার্চ (Secarce) রেজাল্টে প্রথমে যে ওয়েবসাইট (website) গুলো আসে সেখান থেকে প্রথম ২-৩ টা ওয়েবসাইট (website) ই আমরা (We) সাধারনত ভিজিট (Visit) করে থাকি।

 

অফ পেজ এসইও (off page SEO) কি ? কিভাবে করবেন mozartech

 

অন পেজ এসইও অপটিমাইজেশন কি ? (SEO বাংলা টিউটোরিয়াল) 2020

 

 

ফোরম পোষ্টিং (Posting) / প্রশ্ন (Question)-উত্তর সাইট (Site)

ওয়েবসাইটে (website) ভিজিটর (Visitor) আনার অরেকটি চমৎকার উপায় হলো ফোরাম (Forum) পোষ্টিং (Posting) এবং প্রশ্ন (Question)-উত্তর সাইট (Site)। ফোরাম (Forum) এবং প্রশ্ন (Question)-উত্তর সাইটগুলোতে মানুষ বিভিন্ন ব্যাপারে জানতে চেয়ে পোষ্ট করে। সেখানে ভিজিটর (Visitor) যে বিষয়ে জানতে চায় সে সম্পর্কে কিছু ইনফরমেশন দিয়ে আপনার ওয়েবসাইটের (Website) লিংক (Link) দিয়ে দিলে ওই সাইট (Site) গুলো থেকে ট্রাফিক আপনার সাইটে যাবে। তবে খেয়াল রাখতে হবে ফোরাম (Forum) সাইট (Site) কিংবা প্রশ্ন (Question)-উত্তর সাইট (Site) গুলোতে উত্তর দেয়ার সময় সেটা যেনো সঠিক নিয়মে করা হয়।

যেমন আমাদের এই সাইটে যদি আপনি মানসম্মত Copy মুক্ত Post এবং আপনার পোষ্টের নিচে আপনার সাইটের লিংক (Link) দিলেন এক্ষেত্রে আপনার ভিজিটর (Visitor) বাড়লো

[Mozartech Notice] পোস্ট করার নীতিমালা | পোস্ট করার আগে অবশ্যই দেখবেন {বাধ্যতামূলক}

 

ভিডিও (Video) মার্কেটিং

 

ভিডিও (Video) মার্কেটিং হতে পারে ওয়েবসাইটে (website) ভিজিটর (Visitor) আনার আরেকটি মাধ্যম। ভিডিও (Video) শেয়ারিং ওয়বেসোইট গুলোতে নিশ রিলেটেড ভিডিও (Video) পোষ্ট করে ডিসক্রিপশনে ওয়েবসাইটের (Website) লিংক (Link) শেয়ার করলে ওই ভিডিও (Video) থেকে ভিজিটরকে নিজের ওয়বেসোইটে পাঠিয়ে ওয়েবসাইটের (Website) ভিজিটর (Visitor) বাড়ানো যেতে পারে।

https://www.youtube.com

https://vimeo.com

http://www.ustream.tv

https://vine.co

http://www.hulu.com

 

 

ব্লগ কমেন্ট (Comments) করে

 

ওয়েবসাইটে (website) ভিজিটর (Visitor) অনার আরেকটি অণ্যতম পদ্ধতি হতে পারে ব্লগ কমেন্ট (Comments)। নিশ রিলেটেড ব্লগ গুলো খুজে বের করে কমেন্ট (Comments) অপশনে কমেন্ট (Comments) করে সাইটের লিংক (Link) হাইপার লিংক (Link) করে দিতে হয়। এর ফলে সেই লিংকের মাধ্যমে ওই ব্লগের ভিজিটর (Visitor) রা আপনার ওয়েবসাইট (website) ভিজিট (Visit) করবে।

 

 

উপরের আলোচনার মাধ্যমে আমরা (We) এতক্ষন ওয়বসাইটে কিভাবে ভিজিটর (Visitor) আনা যায় সে ব্যাপারে ধারনা পেলাম। তবে মূল কাজটা কিন্তু এখানেই শেষ না। বরং মূল কাজটা মাত্র শুরু। কারন একটা ওয়েবসাইটে (website) শুধু ভিজিটর (Visitor) আনলেই হবে না। সেই ভিজিটরকে অবশ্যই ধরে রাখার ব্যবস্থা করতে হবে। এর বাইরে দেখাযায় অনেক ভিজিটর (Visitor) ওয়েবসাইট (website) লোড হওয়ার পরপর ই ভিজিটর (Visitor) সাইট (Site) টি বন্ধ করে দেন। এটা যেকোনো ওয়েবসাইটের (Website) জন্য খুবই খারাপ লক্ষন। ওর ফলে ওয়েবসাইটের (Website) বাউন্স (Bounce) রেট বেড়ে যায়।

 

 

বাউন্স (Bounce) রেট কি?

আমরা (We) দেখি বাউন্স (Bounce) রেট সব সময় % হিসেবে প্রকাশ করা হয়। বাউন্স (Bounce) রেট হলো এমন একটা % যেটা দ্বারা বোঝানো হয় “আপনার ওয়েসাইটে আসার পর মোট ভিজিটরের কতো % অন্য কোনো পেজ ভিজিট (Visit) না করেই বন্ধ করে দিয়েছে” অর্থা যদি আপনার ওয়েবসাইটের (Website) মোট ভিজিটর (Visitor) যদি হয় ১০০০ জন তার মধ্যে ৬০০ জন্যই আপনার হোম পেজ লোড হওয়ার পর অণ্য কোনো পেজ ভিজিট (Visit) না করেই আপনার ওয়েবসাইট (website) টি বন্ধ করে দেয় তবে আপনার ওয়েবসাইটের (Website) বাউন্সরেট হবে ৬০%।

 

প্রশ্ন (Question) আসতে পারে ওয়বেসাইটের বাউন্স (Bounce) রেট এর স্টান্ডার্ড এমাইন্ট কতো। অনলাইন ইন্ডাস্ট্রিতে নিচের বাউন্স (Bounce) রেটের % কে স্টান্ডার্ড হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

 বাউন্স (Bounce) রেট কী

 

 

 

 

ওয়েবসাইটে (website) ভিজিটর (Visitor) ধরে রাখার 5 টি উপায়

 ওয়েব সাইট (Site) ভিজিটর (Visitor) বাড়ানোর উপায়

 

১. ইউনিক (Unique) এবং ইনফরমেটিভ (Inforamative) কন্টেন্ট (Content) পোষ্ট করা

কন্টেন্টের ব্যাপারে একটা ব্যাপার আমরা (We) সবাই জানি। তা হলো “Content Is King” যেকোন ধরনের ওয়েবসাইট (website) ই হোক না কেনো কন্টেন্ট (Content) সবসময়ই গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে।কন্টেন্ট (Content) লেখা এবং সাইটে পাবলিশ করার আগে খেয়াল রাখতে লেখাটি ইউনিক (Unique) এবং ইনফরমেটিভ (Inforamative) কিনা। কন্টেন্ট (Content) ইউনিক (Unique) এবং ইনফরমেটিভ (Inforamative) হলে ভিজিটর (Visitor) সেই সাইটে বেশি থাকে।

 

২. আকর্ষনীয় ছবি

সোশ্যাল (Socal) মিডিয়া (Media) এবং অন্যন্ন প্লাটফর্মে একটি সুন্দর আইক্যাচি ফটোর সাথে ওয়েবসাইটের (Website) লিংক (Link) দেয়া থাকলে নরমাল যেকেনো সময়ের থেকে ওয়েবসাইট (website) বেশি ভিজিটর (Visitor) পেয়ে থাকে।

 

 

৩. ওয়েসবাইট দ্রুত লোড নেয়া

একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে একজন ভিজিটর (Visitor) একটি ওয়েবসাইট (website) ভিজিট (Visit) করার জন্য নরমালি ৩সেকেন্ড সময় নেন। অর্থাৎ যদি ৩ সেকেন্ডের মধ্যে কোনো সাইট (Site) লোড না নেয় তবে ভিজিটর (Visitor) বিরক্ত হয় এবং সাইট (Site) ভিজিট (Visit) করা থেকে বিরত থাকেন ।

 

 

৪. রেসপন্সিভ (Responsive) বা ইউজার ফ্রেন্ডলি সাইট (Site) ডিজাইন

পিসি, ল্যাপটপ, ফোন, ট্যাবলেট সবকিছুর স্ক্রিন একই রকম না, তাই চেষ্টা করতে হয় প্রতিষ্ঠানটি পাইছে জানু রেস্পন্সিভ ভাবে ওয়েবসাইট প্রেজেন্ট করতে পারে

 

৫. সাইটে কমেন্ট (Comments) করার অপশন রাখা এবং দ্রুত রিপ্লাই দেয়া

কমেন্ট (Comments) সেকশনে এংগেজ থাকলে ওয়েবসাইটের (Website) রেগুরার ভিজিটরের সংখ্যা কয়েকগুন বেড়ে যায়।এজন্য সাইটের কন্টেন্ট (Content) অপশনের কমেন্ট (Comments) সেকশন টা চালু করে দিতে হবে। এর ফলে যা হবে ভিজিটর (Visitor) রা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন (Question) করে থাকে। এই প্রশ্নগুলোর উত্তর যখন সাইটের অথরের কাছে যায় তখন তিনি রিপলে দেন। এর ফলে কোয়েশ্চেনকারীর মেইলে একটা ইমেইল যায়। যারফলে কোয়েশ্চেনকারী অথরের রিপলে পড়ার জন্য হলেও আবার ওয়েবসাইট (website) টি আরেকবার ভিজিট (Visit) করে।

 

 

আমাদের শেষ কথা

এই আর্টকেল টি পড়ে কিভাবে ওয়েবসাইটের (Website) ভিজিটর (Visitor) বাড়ানো এবং কিভাবে সেই ভিজিটরে ধরে রাখা যায় সে ব্যাপার গুরুত্বপূর্ন কিছু ধারনা পেয়ছেন।

 

এছাড়া ভিজিটর (Visitor) বাড়ানোর আরো কিছু উপায় আছে যেগুলো না করলে ভিজিটর (Visitor) বাড়বে না সেগুলো হলো অনপেজ এসইও অফ পেজ এসইও

 

কয়কেদিন পর আমরা (We) আবার নতুন কোনো আর্টকেল নিয়ে হাজির হবো।

 

 

আরো পড়ুন

গুগল এডসেন্স পলিসি, নিয়ম কানুন ও শর্তাবলী : (Adsense policy in Bengali)

 

সিপিএ (CPA) মার্কেটিং কি ?| CPA marketing( বিস্তারিত আলোচনা)

 

আরো নতুন নতুন আর্টিকেল পড়ার জন্য আমাদের সাইটে ভিজিট (Visit) করুন

 

 

 

আল্লাহ হাফেজ

আমাদের অ্যাপ ডাউনলোড করুন Flower2.6K Active Installations